শিরোনাম :
দেশকে ‘নব্য রাজাকার’মুক্ত করার হুঁশিয়ারি আ.লীগ নেতাদের বৃহস্পতিবার সারাদেশে ‘কমপ্লিট শাটডাউন’ কর্মসূচি ঘোষণা ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের আর কখনো পাঠদান করব না: সহকারী অধ্যাপক উম্মে ফারহানা আলিপুরে পুনর্বাসন নিশ্চিত করতে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ দেবহাটার সরকারি কেবিএ কলেজ ও সোনালী ব্যাংক পিএলসি’র চুক্তি স্বাক্ষর রড-কুড়াল নিয়ে ঢামেকে ঢুকে আহত আন্দোলনকারীদের ওপর হামলা দেবহাটায় জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধনের লক্ষ্যমাত্রা পূরণ বিষয়ক সভা ঘূর্ণিঝড় আম্পানে ক্ষতিগ্রস্ত সড়ক পুনঃনির্মাণের দাবিতে মানববন্ধন কোটাবিরোধীদের হটাতে পুলিশের অ্যাকশন শুরু, টিয়ারগ্যাস নিক্ষেপ আন্দোলনকারীদের হটিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের দখলে

ক্যাসিনো প্রসঙ্গে মেনন : ইট ইজ নট মাই ডিউটি

ডেস্ক রিপোর্ট
  • আপডেটের সময় : শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
  • ১২০

রাজধানীতে গত কয়েক দিনে ধরে র‌্যাব অভিযানে চালাচ্ছে জুয়ার আসর ও ক্যাসিনোগুলোতে। ফকিরাপুলে ইয়ংমেন্স ক্লাবে অভিযান চালিয়ে অবৈধ ক্যাসিনো থেকে ১৪২ জনকে আটক করা হয়। ওই ক্লাবটির গভর্নিং বডির চেয়ারম্যান স্থানীয় সংসদ সদস্য রাশেদ খান মেনন। তবে তিনি ‘ক্যাসিনো’ প্রসঙ্গে কিছু জানতেন না বলে আগেই মন্তব্য করেছিলেন।

এ প্রসঙ্গে ক্লাবের গভর্নিং বডির চেয়ারম্যানের এসব না জানা নিজের ব্যর্থতা কিনা জানতে চাইলে অনেকটা ক্ষিপ্ত হয়ে মেনন বলেন, ‘আমার অনুশোচনা হবে কেন? ইট ইজ নট মাই ডিউটি। ইট ইজ ডিউটি অব আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।’

বৃহস্পতিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) ক্যাসিনোকাণ্ড নিয়ে সংসদ সদস্য রাশেদ খান মেননের সাক্ষাৎকার নিতে গেলে উত্তেজিত হয়ে গণমাধ্যমকে তিনি এ মন্তব্য করেন।
ক্লাবটিতে ক্যাসিনো চালানো কথা জানতেন না বলেও জানান রাশেদ খান মেনন।

এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আমি ক্লাবের চেয়ারম্যান। আমি কি তা অস্বীকার করছি? আমি কখনো কোনো দায়িত্বে ছিলাম না, এখনো নেই। যেদিন ক্লাবটি ওপেন করেছি শুধু সেদিন গেছি। আর কোনোদিন যায়নি। যাওয়ার কোনো স্কোপই নাই।

এমপি হিসেবে নিজের এলাকার কোথায় কি হচ্ছে না হচ্ছে তা জানার প্রয়োজন আছে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এটা আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কাজ। আমার সংসদীয় এলাকায় তো ডাকাত আছে, খুনি আছে, সন্ত্রাসী আছে। তার দায় দায়িত্ব কি আমাকে নিতে হবে! এটা তো এমপির দায়িত্ব না।

এর আগে, শনিবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে ক্যাসিনোতে জুয়ার আড্ডা, ঘুষ, দুর্নীতিসহ দেশের সার্বিক পরিস্থিতিতে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে জামায়াতের সেক্রেটারি জেনারেল ডা. শফিকুর রহমান বলেন, ‘দেশবাসী মনে করে সরকারের ছত্রচ্ছায়ায় বহু আগেই গড়ে ওঠে এ ধরনের অবৈধ ক্যাসিনো। একটি জাতীয় দৈনিকে একটি বিশেষ প্রতিবেদন প্রকাশিত হওয়ার পরে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর টনক নড়েছে এবং তারা অভিযান চালিয়েছে। কিন্তু দেশবাসীর প্রশ্ন এর আগে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও দুর্নীতি দমন কমিশন কী করেছে? তারা কী ঘুমিয়ে ছিল? তারা আগে থেকে কেন এসব দুর্নীতির বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করেনি? দুর্নীতি দমন কমিশনের কাজ কী?’

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত ২০২১
Design and Developed by IT Craft in association with INTENT