শিরোনাম :
দেশকে ‘নব্য রাজাকার’মুক্ত করার হুঁশিয়ারি আ.লীগ নেতাদের বৃহস্পতিবার সারাদেশে ‘কমপ্লিট শাটডাউন’ কর্মসূচি ঘোষণা ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের আর কখনো পাঠদান করব না: সহকারী অধ্যাপক উম্মে ফারহানা আলিপুরে পুনর্বাসন নিশ্চিত করতে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ দেবহাটার সরকারি কেবিএ কলেজ ও সোনালী ব্যাংক পিএলসি’র চুক্তি স্বাক্ষর রড-কুড়াল নিয়ে ঢামেকে ঢুকে আহত আন্দোলনকারীদের ওপর হামলা দেবহাটায় জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধনের লক্ষ্যমাত্রা পূরণ বিষয়ক সভা ঘূর্ণিঝড় আম্পানে ক্ষতিগ্রস্ত সড়ক পুনঃনির্মাণের দাবিতে মানববন্ধন কোটাবিরোধীদের হটাতে পুলিশের অ্যাকশন শুরু, টিয়ারগ্যাস নিক্ষেপ আন্দোলনকারীদের হটিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের দখলে

৫ দিনব্যাপী শিক্ষকদের কর্মবিরতির ডাক

শিক্ষা ও শিক্ষাঙ্গন ডেস্ক
  • আপডেটের সময় : সোমবার, ১৪ অক্টোবর, ২০১৯
  • ১১৩

ঝালকাঠিসহ সারা দেশের প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের বেতন-ভাতা আপগ্রেড করার দাবিতে পাঁচ দিনব্যাপী কর্মবিরতি আন্দোলনের ডাক দিয়েছে বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক ঐক্য পরিষদ। প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বার্ষিক, ৫ম শ্রেণির সমাপনী পরীক্ষার আগে এমন আন্দোলনের ডাক দেওয়ায় শিক্ষার্থীরা চরম ক্ষতির সম্মুখীন হবে বলে জানিয়েছেন অভিভাবকরা।

সংগঠন সূত্রে জানা গেছে, প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকদের বেতন ১০ম গ্রেডে এবং সহকারী শিক্ষকদের বেতন ১১তম গ্রেডে প্রদান করা হচ্ছে। এ জন্য শিক্ষকদের বিভিন্ন সময়ে আন্দোলনের প্রেক্ষিতে প্রাথমিক শিক্ষকদের বেতন আপগ্রেড ঘোষণা করা হলেও তা বাস্তবায়ন করা হয়নি। ন্যায্য দাবি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে পাঁচ দিনব্যাপী কর্মবিরতির আন্দোলন ঘোষণা করেছে সংগঠনটি। ১৪ অক্টোবর সোমবার সকাল ১০টা থেকে ১২টা পর্যন্ত নিজ বিদ্যালয়ে কর্মবিরতি। ১৫ অক্টোবর মঙ্গলবার সকাল ১০টা থেকে ১টা পর্যন্ত নিজ বিদ্যালয়ে কর্মবিরতি। ১৬ অক্টোবর বুধবার অর্ধদিবস নিজ বিদ্যালয়ে কর্মবিরতি। ১৭ অক্টোবর বৃহস্পতিবার র্পূণদিবস নিজ বিদ্যালয়ে কর্মবিরতি। এর মধ্যে দাবি আদায় না হলে ২৩ অক্টোবর বুধবার ঢাকায় সমাবেশের মাধ্যমে লাগাতার কর্মবিরতি ও অবস্থান ধর্মঘটসহ কঠোর কর্মসূচি পালন করা হবে।

অভিভাবকরা জানান, আমাদের সন্তানের সামনে বার্ষিক পরীক্ষা। এর পূর্ব মুহূর্তে শিক্ষকরা আন্দোলন কর্মসূচি ঘোষণা করেছে। যদি কর্মসূচি অনুযায়ী আন্দোলন পালন করা হয় তাহলে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সমাপনী ও বার্ষিক পরীক্ষার ফলে মারাত্মক বিপর্যয় দেখা দেবে।

ঝালকাঠি জেলা প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক সমিতির সভাপতি মাহতাব হোসেন টিটু জানান, আমরা আমাদের দাবি আদায়ের লক্ষ্যে কর্মসূচি ঘোষণা করেছি। কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সারাদেশে একযোগে এ কর্মসূচি পালন করা হবে। কর্মসূচি পালন করলে শিক্ষার্থীদের পড়াশোনায় ব্যাঘাত ঘটবে। আমরা এ জন্য পর্যায়ক্রমে কর্মসূচি ঘোষণা করেছি। যাতে আমাদের দাবি আগেই মেনে নিয়ে বেতন-ভাতার বৈষম্য দূর করে আপগ্রেড ঘোষণা করা হয়। আমরা চাই না আমাদের আন্দোলনের ফলে শিক্ষার্থীদের পড়াশোনা ব্যাহত হোক বলেও জানান তিনি।

ঝালকাঠি জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মো. নবেজ উদ্দিন সরকার জানান, প্রাথমিক শিক্ষক ঐক্যপরিষদ আন্দোলনের ডাক দিয়েছে, যা আমি সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুক থেকে জেনেছি। বছরের শেষ সময়ে পরীক্ষার আগ মুহূর্তে শিক্ষকরা আন্দোলন করলে আমরা তা উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানাব। তারা আমাদের যেভাবে নির্দেশনা দেবেন আমরা সেভাবেই পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহণ করব।<

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত ২০২১
Design and Developed by IT Craft in association with INTENT